ভিক্টোরিয়া থেকে গুগল আর্টস অ্যান্ড কালচার-এর মাধ্যমে ভার্চুয়ালে দেখানো হবে কবিগুরুর তথ্য

গুগল আর্টস অ্যান্ড কালচার-এর (Google Arts & Culture) মাধ্যমে ভিক্টোরিয়া থেকে ভার্চুয়ালি নতুন আলোয় দেখানো হবে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে। ভারতের ৭৪তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের উদ্যোগে আয়োজিত হতে চলেছে এক বেনজির প্রদর্শনী।

         ব্রিটিশ সরকারের দেওয়া নাইটহুড উপাধি ফিরিয়ে দিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রমাণ করে দিয়েছিলেন, তাঁর কাছে দেশের মানুষের চেয়ে বড় আর কিছুই নয়। ১৯০৫ সালে লর্ড কার্জনের বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে তাঁর সরব হওয়া এবং তাঁর কলমের জোরে বাঙালিকে একসূত্রে বাঁধার জন্যে একের পর এক গান লেখা। কাজেই দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে তাঁর অবদান যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। নতুন ভার্চুয়াল প্রদর্শনীর দৌলতে সারা বিশ্বের মানুষ মাউসের এক ক্লিকেই প্রত্যক্ষ করতে পারবেন বিভিন্ন প্রখ্যাত শিল্পীর আঁকা কবিগুরুর পোর্ট্রেট। সেই তালিকায় অবশ্যই থাকছেন তাঁর পুত্রবধূও। থাকবে রবীন্দ্রনাথের হাতে লেখা চিঠি ও গান এবং বাছাই করা অমূল্য কিছু স্থিরচিত্র। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে ঠিক কোন কোন দিক থেকে নোবেল জয়ী রবীন্দ্রনাথ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন তাও তুলে ধরা হবে এই প্রদর্শনীতে।

       ভার্চুয়াল এই প্রদর্শনীতে দেখা যাবে ১) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাক্ষর করা এক বিরল ছবি। ১৯৪০ সালে স্ত্রী কস্তুরবা গান্ধীকে নিয়ে শান্তিনিকেতনে গিয়েছিলেন মহাত্মা গান্ধী। তখন শরীরের অবস্থা মোটেই ভালো ছিল না কবিগুরুর। তবুও আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন মহাত্মাকে। তা দেখতে পাবেন। ২) প্রতিমা দেবী, অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর, গগণেন্দ্রনাথ ঠাকুর, যামিনী রায় এবং অতুল বোসের আঁকা কবিগুরুর বিরল কিছু ছবি। ৩) ১৯২৬ সালের ১৮ – ১৯ সেপ্টেম্বরে জার্মানি সফরে গিয়ে নুরেমবার্গ এবং মিউনিখে বসে গীতাষ্টকের হাতে লেখা পাণ্ডুলিপি। পরবর্তী সময়ে এই  লেখনীগুলির প্রায় প্রতিটিতেই সুর দিয়েছিলেন তিনি।

        ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলের সেক্রেটারি এবং কিউরেটর জয়ন্ত সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, ‘যেহেতু মিউজিয়াম এখনও বন্ধ, তাই আমরা বিভিন্ন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিজেদের উপস্থিতি বাড়ানোর চেষ্টা করছি। এই উদ্যোগ সফল করতে তাই আমরা সাহায্য নিয়েছি গুগল আর্টস অ্যান্ড কালচার প্ল্যাটফর্মের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির। আমাদের আশা, এই ভার্চুয়াল প্রদর্শনীর মাধ্যমে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অজানা দিক জানার সুযোগ পাবেন মানুষ।’

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s