ডিজাইনার শর্বরী দত্তের মৃত্যু হয়েছে মস্তিষ্ক রক্তক্ষরণে

মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয়েছে ডিজাইনার শর্বরী দত্তের। সূত্রের খবর, শুক্রবার বিকেলে ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে জানানো হয়েছে, সেরিব্রাল স্ট্রোক হয়েছিল ৬৩ বছরের শর্বরীদেবীর। তাই শৌচাগারে পড়ে যান তিনি। সেখান থেকে ইন্টারনাল হ্যামারেজ হয় তাঁর। বৃহস্পতিবার রাতে নিজের বাড়ির শৌচাগার থেকে উদ্ধার হয়েছিল শর্বরী দত্তের দেহ। ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রের খবর, অবসাদে ভুগছিলেন তিনি।

          শুক্রবার দুপুরে নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে শুরু হয় শর্বরীদেবীর দেহের ময়নাতদন্ত। প্রায় তিন ঘণ্টা পর শেষ হয় প্রক্রিয়া। সঙ্গে জানানো হয়েছে ময়নাতদন্তের অন্তত ৩৬ ঘণ্টা আগে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ভোরবেলা সেরিব্রাল স্ট্রোক হয়েছিল ফ্যাশন ডিজাইনারের, এমনটাই মনে করছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে খুনের ঘটনা এটি নয়। তবে নিজেদের তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, ময়নাতদন্তের পরে শর্বরী দত্তের দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এরপরে তাঁর শেষকৃত্য কী ভাবে হবে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে পরিবার। ব্রড স্ট্রিটের বাড়িতে ছেলে ও পুত্রবধূর সঙ্গে থাকতেন শর্বরীদেবী। জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সারা দিনই তাঁদের সঙ্গে দেখা হয়নি শর্বরীদেবীর। দেহ উদ্ধার হয় রাত ১১টার কিছু পর। ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলায় দায়ের করেছিল কড়েয়া থানা। তবে এদিন ময়নাতদন্তের রিপোর্টে স্পষ্ট করা হয়েছে, মৃত্যু হয়েছে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে।

            নয়ের দশকের মাঝামাঝি সময়ে ফ্যাশন দুনিয়ায় অন্য ধারা নিয়ে কাজ শুরু করেন শর্বরীদেবী। ২০০৮ সাল নাগাদ ধুতি পাঞ্জাবির উপর ইজিপ্ট ঘরানার কারুকার্য করে আন্তর্জাতিক পুরস্কারও জিতেছিলেন তিনি। শর্বরীদত্তের মৃত্যুতে তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে গফিলতির অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, ছেলে ও পুত্রবধূর সঙ্গে সম্পর্ক ভাল ছিল না শর্বরীদেবীর। তাঁর সংস্থা ও সম্পত্তির অংশিদারিত্ব নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলছিল তাঁদের। কয়েক বছর আগে পারিবারিক ব্যবসা ছেড়ে নিজের স্টোর খোলেন শর্বরীদেবী, নাম দেন ‘শূন্য’।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s