কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য দুটি লাভজনক প্রকল্প ঘোষণা

সোমবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন ঘোষণা করলেন, উৎসবের ভাতা হিসাবে সমস্ত কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী ও অফিসারদের এককালীন ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য লিভ ট্রাভেল কনসেশন ক্যাশ ভাউচার প্রকল্প (LTC Cash voucher Scheme) চালু হতে চলেছে। ঝিমিয়ে পড়া দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে বাজারে পণ্যের চাহিদা সৃষ্টির উপরে জোর দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই জন্য উৎসব মরশুমকে বেছে নিয়েছেন মোদী সরকারের অর্থমন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের LTC নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা করেছে সরকার ৷

           চার বছরে এক বার LTC স্কিমের লাভ ভোগ করতে পারবেন সরকারি কর্মচারীরা ৷ ভারতের মধ্যে যে কোনও জায়গায় ঘোরার জন্য এবং নিজের হোমটাউনে যাওয়ার খরচ বহন করবে সরকার৷ সীতারমন বলেন, কেউ শুধুমাত্র হোমটাউন যাতায়াত করলে সেক্ষেত্রে দু’বার LTC -এর সুবিধা নিতে পারবেন ৷ এই স্কিমে সমস্ত কর্মচারী তাঁর পদ এবং পে স্কেল অনুযায়ী বিমান অথবা ট্রেনে যাতায়াতের খরচ পাবেন ৷ এছাড়া ১০ দিনের বিশেষ ছুটিও পাবেন কর্মচারীরা ৷ সমস্ত PSU এবং ব্যাঙ্কে কর্মরত কর্মীরাও এই যোজনার সুবিধা পাবেন ৷ সীতারামনের এদিনের ঘোষণা অনুসারে, ২০১৮-২১ সালের সময়সীমার LTC কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা লিভ এনক্যাশমেন্টের পরিবর্তে নগদ অর্থে নিতে পারবেন। এর সঙ্গে যুক্ত হবে তিন বারের টিকিটের ভাড়া। তবে  শর্ত দেওয়া হয়েছে এলটিসি ক্যাশ ভাউচার প্রকল্পে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এ দিনের ঘোষণা অনুসারে, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের এর সম্পূর্ণ সুবিধা নিতে হলে LTC-র জন্য বরাদ্দ প্রাপ্য অর্থের থেকে তিনগুণ বেশি খরচ করতে হবে। কেনা যাবে না খাদ্যদ্রব্য বা পেট্রল-ডিজেলের মতো খাদ্য বা জরুরি পণ্য। লেনদেন করতে হবে ডিজিটাল মাধ্যমে। পাশাপাশি জমা দিতে হবে GST ইনভয়েস।

   এছাড়াও বলা হয়েছে ওই পণ্যের ৩০ শতাংশ অর্থ ভাউচারের মাধ্যমে মেটানো যাবে। বাকি টাকা মেটাতে হবে গ্রাহককে। শুধু তাই নয়, ২০২১ সালের মার্চ মাসের মধ্যে ভাউচারের পুরো টাকা খরচ করে ফেলতে হবে। এর পরে ভাউচারের আর কোনও বৈধতা থাকবে না। সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজারে চাহিদা তৈরি করার জন্যই এই পথে হাঁটছে কেন্দ্র। সরকারি কর্মচারীদের যেহেতু বেতন অপরিবর্তিত রয়েছে তাই কনজিউমার গুডস কেনায় ও খরচে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে ৷ এইভাবে যদি কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের খরচে উৎসাহ দেওয়া যায় তাহলে ২৮ হাজার কোটি টাকার চাহিদা তৈরি হবে অর্থনীতিতে ৷

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s