৩১ ডিসেম্বর রাতে জমায়েত নিষিদ্ধ

দেশে ইতিমধ্যেই ২২ জনের শরীরে মিলেছে ব্রিটেনের নতুন করোনা স্ট্রেন। আর কয়েকঘন্টা পরেই নতুন বছরের শুরু। বছর শেষে উদ্বেগ আরও বাড়িয়েছে ব্রিটেনের এই নতুন করোনা স্ট্রেন। এই পরিস্থিতিতে বর্ষবরণের আনন্দে সংক্রমণ রুখতে রীতিমতো আসরে নামল কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। এবার স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর (SOP) তৈরি করে দিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। সমস্ত রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিবকে সেই এসওপি পাঠানো হয়েছে। ক্রিসমাসে বিভিন্ন রাজ্যে যেভাবে পথে নেমেছিল মানুষ, বর্ষবরণে তা আরও বাড়তে পারে। সেই কারণেই আঁটোসাঁটো ভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে আসরে নামছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। কলকাতা হাইকোর্ট পশিচমবঙ্গ সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে কোভিডের নিয়ম সঠিকভাবে মেনে চলা হচ্ছে কিনা তার উপর কড়া নজরদারি করতে। কোর্ট আরও বলেছে, নববর্ষ পালনে যেন কোনও জনসমাবেশ শহরে না হয়, সেদিকে নজর দিতে। উৎসবের মরশুমে কোভিডের সংক্রমণ এড়াতেই, পুনরায় এরকম নির্দেশিকা জারি করল রাজ্যের মুখ্য আদালত। মুম্বই, ব্যাঙ্গালোর এবং চেন্নাই-এর মতো দেশের বেশ কিছু শহরে ইতিমধ্যেই ৩১ ডিসেম্বর রাতে জারি করা হয়েছে কারফিউ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s