বিশ্বভারতীতে ওষুধ নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতি

এবারে হাসপাতাল। বিশ্বভারতীর নিজস্ব হাসপাতাল পিয়ারসন মেমোরিয়াল হাসপাতালের ওষুধে গরমিলের অঙ্ক ২০ লক্ষ টাকারও বেশি এমনটাই ধরা পড়ল CAG রিপোর্টে। বিশ্বভারতীর এই হাসপাতালে মূলত বিশ্বভারতীর কর্মী, অধ্যাপক, আধিকারিক এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যরা ও ছাত্রছাত্রীরা চিকিৎসা পরিষেবা পেয়ে থাকে। এখানে ইনডোর এবং আউটডোর উভয় ধরণের চিকিৎসাই করানো হয়।
বিশ্বভারতীর একাংশের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে এই হাসপাতালে ওষুধ নিয়ে বেআইনি কারবার চলছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্তে নেমে CAG জানায়, ২০ লক্ষ টাকারও বেশি দুর্নীতি হয়েছে ওষুধ নিয়ে। রিপোর্টে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, অন্তত চার বছর ধরে চলা এই দুর্নীতিতে মূলত অ্যাজিথ্রোমাইসিন এবং সেফিক্সিন ট্যাবলেটের ক্ষেত্রে কেলেঙ্কারি ঘটেছে। নিয়ম অনুসারে, ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুসারে কাউন্টারে যাঁরা থাকেন, তাঁরাই ওষুধ দেবেন। কিন্তু CAG’র রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ছাড়াই এই ওষুধ দেওয়া হয়েছে। গত চার বছরে এই রকম প্রেসক্রিপন ছাড়া ওষুধ বিক্রি হয়েছে প্রায় ২০ লক্ষ টাকারও বেশি মূল্যের। বিষয়টি সামনে আসতেই পাঁচজন ফার্মাসিস্টকে শোকজ করেছেন পিয়ারসন হাসপাতালের সিএমও অরিন্দম চট্টোপাধ্যায়। নিজস্ব তদন্ত কমিটিও গঠন করতে চলেছে বিশ্বভারতী। সেই কমিটি অভিযুক্তদের শাস্তির সুপারিশ করবে। সেই মতোই পরে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একটি সূত্র মারফত জানা গেছে, যে অর্থক্ষতি হয়েছে, তা এই পাঁচজনের কাছ থেকে উদ্ধার করতে পারে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। অন্যথায় এঁদের সাসপেন্ড করা হতে পারে।
উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই অমর্ত্য সেনের বাড়ি প্রতীচী-র জমি নিয়ে ‘বহিরাগত’ বিতর্ক বিরাটাকার ধারণ করে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী খোদ অমর্ত্য সেনকে চিঠি দিয়ে তাঁর পাশে থাকার বার্তা দেন। তার রেশ কাটতে না কাটতেই শতাধিক বছর আগে প্রতিষ্ঠিত ‘আলাপিনী মহিলা সমিতি’ কার্যত তুলে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ ওঠে। বিশ্বভারতীর মহিলা প্রাক্তনী বা বিশ্বভারতীর অধ্যাপক কর্মীদের স্ত্রীরা আলাপিনী মহিলা সমিতির সদস্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাইঝি ইন্দিরা দেবী চৌধুরানী বিশ্বভারতীর উপাচার্য থাকাকালীন এই মহিলা সমিতিকে অধিবেশন কক্ষ হিসাবে ‘নতুন বাড়ি’টি দিয়েছিলেন। সেই ঘরই এত দিন ‘আলাপিনী’র সদস্যারা ব্যবহার করতেন। সমিতির অভিযোগ, সেই ঘর থেকে ‘আলাপিনী’কে উচ্ছেদ করার চেষ্টা শুরু হয়েছে। যদিও গোটা বিষয়টি নিয়ে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কোনও মন্তব্য করেনি।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s